প্রথম প্রথম যেই কাজটা করতাম সেটা হল মিনিট এ মিনিট এ ট্রেড নিতাম,বিষয়টা একটু ভেঙ্গে বলি,যখন ই আমি মার্কেট এর সামনে আসতাম মনে হত এই বুঝি একটা এন্ট্রি মিসসসস হয়ে গেল। সাথে সাথে নিশশাস বন্ধ করে একটা ট্রেড অপেন করতাম।


ওপেন করার একটু পরেই দেখি মারকেট আমার বিপরিতে ট্রেড টা ক্লোজ করে দেই অল্প একটু লস এ,আবার ঊল্টা দিকে ট্রেড ওপেন করি একটু পর আবার উলটা মারে, কি যন্ত্রনা। মনে হয় মারকেট এর সাথে আমার দা-কুমড়া সম্পরক...।

আপনাদের হয়ত এরকম হয় নাই,যদি না হয় তবে ভালো। আর যদি হয় আরো ভালো। কেন ভালো? কারন আপনি এখানে থেকে অনেক কিছু সিখেছেন। আর যদি সত্যি সিখে থাকেন তবে সেটা মাথায় রাখেন।

এবার সামনে আসেন,কোথাই কিভাবে ট্রেড ওপেন করলে আপনার ট্রেড টা লস এর দিকে যাবেনা...।


১। ১ডে এবং ১ উইক এর ক্যান্ডেল দেখে নিন এক পলক
২। এবার আসুন ৪ঘন্টা ক্যান্ডেল এ, ১ডে এবং ৪ঘন্টার এর ক্যান্ডেল টার সাপরট রেসিস্ট্যান্স টা দেখে নিন,চ্যানেল টা দেখে নিন,মারকেট ট্রেন্ড মারকেট হলে ভালো হয়। সাইডওয়ে মারকেট একটু রিস্কি।
৩। ফিবো রিট্রেস্মেন্ট টা আকিয়ে নিন সেটা ডে এবং ৪ঘন্টা এর ক্যান্ডেল এ আকান,দুই কালার হলে ভালো হই,এর পর দেখুন কোন পইন্ট এ দুইটি রেখা মিলে এক হয়ে যাই,মানে ৪ঘন্টা আর ১ডে ক্যান্ডেল এক হচ্ছে কিনা দেখুন যদি হয় তাইলে সেটা একটি গুরুত্তপুরন সাপরট বা রেসিস্টান্স হিসেবে কাজ করবে।
৪। এবার ১৫ মিনিট ও ১ ঘন্টা এর ক্যান্ডেল গুল দেখুন ট্রেন্ডের দিকে যেতে যেতে মারকেট একটু একটু পিছনে ফিরে তাকাই,যা রিট্রেস নামে আমরা জানি,সেটাই হচ্ছে এন্ট্রি পইন্ট।
মনে রাখবেন,সব সময় ট্রেন্ড এর দিকে ট্রেড করবেন।

এর পর পিকচার সংজুক্ত করব যদি আপনাদের শাড়া পায়।
ভালো থাকবেন,আজকের মত কিবোরড এ পরজন্তই।