বিটকয়েনের মতো এথেরিয়ামও একটি ক্রিপ্টোকারেন্সি যার জনপ্রিয়তা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে বিটকয়েনের তুলনায় এর বেশ কিছু পার্থক্য রয়েছে:

এটি ডিসেন্ট্রালাইজেড টুরিং- সম্পূর্ণ ভার্চুয়াল মেশিনে হয়
এথেরিয়াম ভার্চুয়াল মেশিন (ইভিএম), যা কিনা আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্কের ব্যবহার করে পাবলিক নোডগুলোর মাধ্যমে স্ক্রিপ্ট চালাতে পারে।
এটি "এথার" নামক একটি ক্রিপ্টোকারেন্সি টোকেন প্রদান করে, যা অ্যাকাউন্টগুলির মধ্যে স্থানান্তরিত করা যায় এবং সঞ্চালিত কম্পিউটেশনের জন্য অংশগ্রহণকারী নোডের ভারসাম্য বজায় রাখাতে ব্যবহৃত হয়।


এখানে এথেরিয়াম সম্পর্কে আলোচনা করুন ...