আয় করুন
$50000
বন্ধুদের আমন্ত্রণ করার জন্য
ইন্সটাফরেক্স থেকে স্টার্টআপ
বোনাস নিন
কোন বিনিয়োগের প্রয়োজন নেই!
কোনো বিনিয়োগ এবং ঝুঁকি
ছাড়াই ট্রেডিং শুরু করতে
গ্রহণ করুন নতুন স্টার্টআপ
বোনাস $1000
বোনাস নিন
৫৫%
ইন্সটাফরেক্স থেকে
প্রতিবার অর্থ জমাদানে
+ প্রসঙ্গে প্রত্যুত্তর
পৃষ্ঠা 1 of 8 123 ... গতগত
ফলাফল দেখাচ্ছে 1 হইতে 10 সর্বমোট 78

প্রসংগ: চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্টের ট্রেড ওয়ার!!!

  1. #1
    প্রবীণ সদস্য Tofazzal Mia's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Feb 2018
    মন্তব্য
    238
    সঞ্চিত বোনাস
    347.85 USD
    ধন্যবাদ
    28
    33 টি পোস্টের জন্য 47 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন

    চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্টের ট্রেড ওয়ার!!!

    Click image for larger version

Name:	InstaForex- নিউজ.jpg
Views:	0
Size:	91.3 কিলোবাইট
ID:	5791
    চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট সকল ক্ষেত্রে ব্যবসায় নিয়ে সরাসরি যুদ্ধ নেমেছে। ডোনাল্ড ট্রাম্প ও শি জিনপিং বিভিন্ন গনমাধ্যমগুলোতে তাদের পাল্টা-পাল্টি বক্তব্য দিচ্ছেন।
    তারা দুজনই খুব আক্রমনাত্মক এবং তারা ইতোমধ্যে বলেছে তারা বিশ্বকে শাসন করবে। আসলে কি সত্যিই তারা পুরোবিশ্বকে শাষন করতে পারবেন?
    আপনি এটাকে কিভাবে দেখছেন কিংবা এটা কি তাদের পক্ষে সম্ভব মনে করেন?

  2. Remove Your Thanks

    নিম্নলিখিত দরকারী পোস্টের জন্য Tofazzal Mia কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন:

    Unregistered (1 )

  3. #2
    প্রবীণ সদস্য Montu Zaman's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Feb 2018
    মন্তব্য
    469
    সঞ্চিত বোনাস
    794.84 USD
    ধন্যবাদ
    46
    93 টি পোস্টের জন্য 142 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র একমাত্র দেশ যে কিনা ট্রিলিয়ন ডলারের ঋণের বোঝা রয়েছে, যা খুব একটা ভাল জিনিস নয়। মার্কিন সরকার যুদ্ধে নামার আগেই আমার মনে হয় তারা দেউলিয়া হয়ে যাবে। অন্য দিকে ডোনাল্ড ট্রাম্প এখন সারা বিশ্বে একটি ঘৃণিত নাম।
    চীনের স্বর্ণ কেনা এবং মার্কিন কোষাগারে তাদের রিজার্ভ এর টাকা সংগ্রহ করা হচ্ছে, ফলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তেমন একটা সুবিধা করতে পারবে বলে আমার মনে হয় না।

  4. #3
    প্রবীণ সদস্য Tofazzal Mia's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Feb 2018
    মন্তব্য
    238
    সঞ্চিত বোনাস
    347.85 USD
    ধন্যবাদ
    28
    33 টি পোস্টের জন্য 47 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    মার্কিন যুক্তরাষ্ট ও চীনের মধ্যে শুধু ইস্পাত ও অ্যালুমিনিয়ামের ওপর শুল্ক আরোপ নিয়ে নয়, যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে টেকনোলজি যুদ্ধে নেমেছে। এই বাণিজ্যযুদ্ধ বা প্রযুক্তিযুদ্ধ কোনটার পরিনাম শুধু যে চীনে বা মার্কিন যুক্তরাষ্টে প্রভাব পরবে সেটা নয়। বরং চীন-মার্কিন এই যুদ্ধের তীব্র প্রভাব পরবে বিশ্ব অর্থনীতিতে। প্রাথমিকভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট ইস্পাত আমদানি সীমিত করলে বা তাতে শুল্ক আরোপ করলে কানাডা, ব্রাজিল, দক্ষিণ কোরিয়া ও রাশিয়া আক্রান্ত হবে। এভাবেই সেটা প্রভাব ফেলবে সে সব দেশের কারেন্সীগুলোতে। সুতরাং ফরেক্স মার্কেট হবে উত্তাল!

  5. #4
    প্রবীণ সদস্য Montu Zaman's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Feb 2018
    মন্তব্য
    469
    সঞ্চিত বোনাস
    794.84 USD
    ধন্যবাদ
    46
    93 টি পোস্টের জন্য 142 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    আমরা সবাই জানি আমেরিকা ও চীন একটি ট্রেড ওয়ার বা বাণিজ্য যুদ্ধের মুখমুখি অবস্থানে দারিয়ে রয়েছে যা সারা বিশ্বের ব্যবসা-বাণিজ্য এর জন্য হুমকি এবং যদিও এটি অন্য দেশগুলোর হাতে কোন কিছু করার নেই। এই যুদ্ধে শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের অর্থনীতিকেই ক্ষতিগ্রস্ত করবে না কিন্তু বিশ্ব অর্থনীতিকে নরবড়ে করে দিবে। কিন্তু কালকের ২০ শে মে ২০১৮ এর নিউজ দেখলাম যে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে চীন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে আমদানি বৃদ্ধি করতে যাচ্ছে!
    আপনি এটা সম্পর্কে কি ভাবছেন?

  6. #5
    প্রবীণ সদস্য Tofazzal Mia's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Feb 2018
    মন্তব্য
    238
    সঞ্চিত বোনাস
    347.85 USD
    ধন্যবাদ
    28
    33 টি পোস্টের জন্য 47 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    ট্রেড ওয়ার খুব ভাল নয় এবং এটি বিশ্বের সকল ট্রেডারদের টেনশনে ফেলে দিবে যেহেতু এই ট্রেড ওয়ার এর প্রভাব অনেকদিন ধরে পৃথিবীজুড়ে চলবে। চীন আসলে বুঝতে পেরেছে যে অর্থনৈতিক শক্তির শীর্ষ স্থানটি দখল করতে হলে একা সে কখনোই এটা করতে পারবে না এবং তার টার্গেট পুরন করার জন্য অন্যান্য দেশগুলিরকে এর সাথে যুক্ত করতে হবে।

  7. #6
    প্রবীণ সদস্য Montu Zaman's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Feb 2018
    মন্তব্য
    469
    সঞ্চিত বোনাস
    794.84 USD
    ধন্যবাদ
    46
    93 টি পোস্টের জন্য 142 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    সোমবার ওয়াশিংটন ও বেইজিং ট্রেড ওয়ারের মুখোমুখি অবস্থান থেকে সরে এসেছে। এই দুটি দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বৃদ্ধির জন্য তারা আরো বেশি বেশি আলোচনা করতে রাজি হয়েছে। সাপ্তাহিক ছুটির পর উভয় রাষ্ট্রই বার্ষিক বাণিজ্য ঘাটতি হ্রাসের লক্ষ্যে চীন কীভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে অতিরিক্ত এনার্জি ও কৃষি পণ্য আমদানি করতে পারে তা নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য চীনের সাথে ৩৩৫ বিলিয়ন ডলারের পণ্য ও সেবা রপ্তানীর প্রতিশ্রুতি দেয়। যদিও এটার বিস্তারিত এবং কম সময়ের মধ্যে এটা বোঝা যাচ্ছে না।

  8. #7
    প্রবীণ সদস্য Tofazzal Mia's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Feb 2018
    মন্তব্য
    238
    সঞ্চিত বোনাস
    347.85 USD
    ধন্যবাদ
    28
    33 টি পোস্টের জন্য 47 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    যদি কোন ট্রেড নিয়ে যুদ্ধ হয় তবে আমি মনে করি চীন জয়ী হবে কারণ তারা এমন এক দল রাষ্ট্র পরিচালনা করছে যারা ভবিষ্যতের লক্ষ্যকে তাদের বাস্তবে দৃষ্টিগোচর করতে পারে। তাদের মতে গণতন্ত্র সম্পর্কে খারাপ জিনিসের ফলে তারা শুধুমাত্র পরবর্তী নির্বাচনের উপর মনোযোগ দিয়েছে এবং রাষ্ট্রপতির মাত্র দুটি পদ দিয়েছে এবং তাই তারা রাজনীতিতে সমসময় ব্যস্ত থাকে। চীন ও রাশিয়ার মতো তাদের নিজস্ব ক্ষমতা ব্যবহারের সঠিক উপায় রয়েছে যেমন পুতিন এবং চী জিনপিং।

  9. #8
    প্রবীণ সদস্য SumonIslam's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Nov 2017
    মন্তব্য
    129
    সঞ্চিত বোনাস
    29.63 USD
    ধন্যবাদ
    29
    24 টি পোস্টের জন্য 30 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    যুক্তরাষ্ট্র ও চীন একে অন্যের পণ্যের ওপর ক্রমাগত শুল্ক আরোপের ঘোষণা দিচ্ছে যা সর্বাত্মক ট্রেড ওয়ারের চরম রুপ ধারন করছে এবং এই ট্রেড যুদ্ধ বিশ্বব্যাপী অর্থনীতিতে তীব্র প্রভাব ফেলবে। তৈল এর দাম বাড়তে শুরু করেছে ফলে বিশ্ব প্রবৃদ্ধি দ্রুত কমে যেতে পারে। এছাড়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে রাশিয়া ও চীন। মুলত অস্ত্র ব্যবসায় আমেরিকার জন্য হুমকি হয়ে উঠছে চীন!

  10. #9
    প্রবীণ সদস্য SUROZ Islam's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Jan 2018
    মন্তব্য
    211
    সঞ্চিত বোনাস
    336.97 USD
    ধন্যবাদ
    55
    34 টি পোস্টের জন্য 54 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    গ্লোবাল ট্রেড ওয়ার এর একেবারে দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে বিশ্ব। গত সোমবার ট্রাম্প ২০০ বিলয়ন ডলার সমমুল্যর চাইনিজ প্রডাক্ট এর উপর ট্যারিফ কার্জকর করার অর্ডার করছে ১০% ট্যারিফ এর জন্য। পালটা জবাব হিসেবে চায়নাও আমেরিকান প্রোডাক্ট এর উপর ট্যারিফ বসাইছে। আবার ইউরোজোন ৩.২ বিলিয়ন ডলার সমমুল্যর ট্যারিফ বসানোর ঘোষনা দিয়েছে আমেরিকান প্রডাক্ট এর উপর। আবার তুরস্ক আমেরিকান প্রডাক্ট এর উপর ২৬৬.৫ মিলিয়ন ডলার সমমুল্যর ট্যারিফ বসাইছে পক্ষান্তরে আমেরিকা বসাইছে ১.১ বিলিয়ন ডলারের। আজকে আবার ট্রাম্প টুইট করে গারির উপর ২৫% ট্যারিফ এর হুমকি দিছে। গাড়ির উপর হুমকি মানেই ইন ডাইরেক্টলি জার্মানির উপর হুমকি।

  11. Options
  12. #10
    প্রবীণ সদস্য SaifulRahman's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Nov 2017
    মন্তব্য
    220
    সঞ্চিত বোনাস
    33.72 USD
    ধন্যবাদ
    58
    37 টি পোস্টের জন্য 42 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    সর্ববৃহৎ অর্থনীতির এই দুটি দেশের এই সংঘাতকে অশনি সঙ্কেত হিসেবে দেখা হচ্ছে বিশ্ববাণিজ্যের জন্য। যেমন ট্রাম্পের সর্বশেষ শুল্ক আরোপের ঘোষণার পাল্টা ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা ইতোমধ্যেই দিয়েছে চীন।চীনের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ট্রাম্পের নতুন ঘোষণাকে ‘ব্ল্যাকমেইল’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে।বেইজিং বলছে, ইতোপূর্বের বৈঠকগুলোতে দুই দেশের মধ্যে যে সমঝোতা হয়েছে এটি তার বিরোধী।আন্তর্জাত ক সম্প্রদায়কেও হতাশ করেছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এই ঘোষণা।পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র থেকে তুলা আমদানিতে ২৫ শতাংশ শুল্ক আরোপ করেছে চীন। ফলে চীন-যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্যযুদ্ধের কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে তুলার মূল্যবৃদ্ধিতে প্রভাব পড়তে শুরু করেছে বাংলাদেশের বস্ত্র খাতের ওপর।দেশের সুতার বাজারেও অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছে।তুলার মূল্যবৃদ্ধির কারণে সুতার দামও বেশি চাইছেন স্পিনাররা। এ বিড়ম্বনারর মূল কারণ দুই পরাশক্তির মধ্যকার বাণিজ্যযুদ্ধ।

+ প্রসঙ্গে প্রত্যুত্তর
পৃষ্ঠা 1 of 8 123 ... গতগত

মন্তব্য নিয়মাবলি

  • আপনি হয়ত নতুন পোস্ট করতে পারবেন না
  • আপনি হয়ত মন্তব্য লিখতে পারবেন না
  • আপনি হয়ত সংযুক্তি সংযুক্ত করতে পারবেন না
  • আপনি হয়ত আপনার মন্তব্য পরিবর্তনপারবেন না
  • BB কোড হলো উপর
  • Smilies are উপর
  • [IMG] কোড হয় উপর
  • এইচটিএমএল কোড হল বন্ধ
বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম উপস্থাপন
ফোরাম সেবায় আপনাকে স্বাগতম যেটি ভার্চুয়াল স্যালুন হিসেবে সকল স্তরের ট্রেডারদের সাথে যোগাযোগ করার সুযোগ প্রদান করছে। ফরেক্স হলো একটি গতিশীল আর্থিক বাজার যেটি দিনে ২৪ঘন্টা খোলা থাকে। যে কেউ ব্রোকারেজ কোম্পানির মাধ্যমে এখানে কার্যক্রম সম্পাদন করতে পারে। এই ফোরামে আপনি কারেন্সি মার্কেটে ট্রেডিং এবং মেটাট্রেডার ফোর ও মেটাট্রেডার ফাইভের মাধ্যমে অনলাইন ট্রেডিং সম্পর্কিত বিস্তারিত বিবরণ পাবেন।

বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম ট্রেডিং আলোচনা
ফোরামের প্রত্যেক সদস্য বিভিন্ন আলোচনায় অংশগ্রহণ করতে পারেন, যার মধ্যে ফরেক্স সম্পর্কিত ও ফরেক্সের বাইরের বিভিন্ন বিষয়ও রয়েছে। ফোরাম বিভিন্ন মতামত এবং প্রয়োজনীয় তথ্য শেয়ারের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে এবং এটি অভিজ্ঞ ও নতুন উভয় ধরণের ট্রেডারদের জন্য উন্মুক্ত। পারস্পরিক সহায়তা এবং সহনশীলতা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। আপনি যদি অন্যদের সাথে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে চান অথবা ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার জ্ঞান বৃদ্ধি করতে চান, তাহলে ট্রেডিং সম্পর্কিত আলোচনা "ফোরাম থ্রেড" এ আপনাকে স্বাগত।

বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম ব্রোকার এবং ট্রেডারদের মধ্যে আলোচনা (ব্রোকার সম্পর্কে)
ফরেক্সে সফল হতে চাইলে, যথেষ্ট কৌশলের সাথে একটি ব্রোকারেজ কোম্পানি বাছাই করতে হবে। আপনার ব্রোকার সত্যিই নির্ভরযোগ্য সেটি নির্ধারণ করুন! এভাবে আপনি অনেক ঝুঁকির সম্মুখীন হবেন এবং ফরেক্সে লাভজনক ট্রেড করতে পারবেন। ফোরামে একজন ব্রোকারের রেটিং উপস্থাপন করা হয়; এটি তাদের গ্রাহকদের রেখে যাওয়া মন্তব্য নিয়ে তৈরি করা হয়। আপনি যে ব্রোকার কোম্পানির সাথে কাজ করছেন সে কোম্পানি সম্পর্কে আপনার মতামত দিন, এটি অন্যান্য ট্রেডারদের ভুল সংশোধন করতে সাহায্য করবে এবং একজন ভালো ব্রোকার বাছাই করতে সাহায্য করবে।

অবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম
এই ফোরামে আপনি শুধু ট্রেডিং এর বিষয় সম্পর্কেই কথা বলবেন না, সেইসাথে আপনার পছন্দের যে কোন বিষয় সম্পর্কে কথা বলতে পারবেন। বিশেষ থ্রেডে অফটপিং ও করা যায়! আপনার পছন্দের যে কোন হাস্যরস, দর্শন, সামাজিক সমস্যা বা বাস্তব জ্ঞান সম্পর্কিত কথাবার্তা এখানে উল্লেখ করতে পারবেন, এমনকি আপনি যদি পছন্দ করেন তাহলে ফরেক্স ট্রেডিং সম্পর্কেও লিখতে পারবেন!

যোগদান করার জন্য বোনাস বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরামে
যারা ফোরামে লেখা পোষ্ট করবে তারা বোনাস হিসেবে অর্থ পাবে এবং সেই বোনাস একটি অ্যাকাউন্টে ট্রেডিং এর সময় ব্যবহার করতে পারবে. ফোরাম অর্থ মুনাফা লাভ করা নয়, অধিকন্তু, ফোরামে সময় ব্যয় করার জন্য এবং কারেন্সি মার্কেট ও ট্রেডিং সম্পর্কে মতামত শেয়ারের জন্য পুরষ্কার হিসেবে ফোরামিটিস অল্প কিছু বোনাস পায়।