আয় করুন
$50000
বন্ধুদের আমন্ত্রণ করার জন্য
ইন্সটাফরেক্স থেকে স্টার্টআপ
বোনাস নিন
কোন বিনিয়োগের প্রয়োজন নেই!
কোনো বিনিয়োগ এবং ঝুঁকি
ছাড়াই ট্রেডিং শুরু করতে
গ্রহণ করুন নতুন স্টার্টআপ
বোনাস $1000
বোনাস নিন
৫৫%
ইন্সটাফরেক্স থেকে
প্রতিবার অর্থ জমাদানে
+ প্রসঙ্গে প্রত্যুত্তর
ফলাফল দেখাচ্ছে 1 হইতে 9 সর্বমোট 9

প্রসংগ: ক্রুড ওয়েল এর দাম কমছে

  1. #1 সঙ্কুচিত পোস্ট
    প্রবীণ সদস্য Rakib Hashan's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Jan 2018
    মন্তব্য
    275
    অর্জিত পেমেন্টস
    563.81 USD
    ধন্যবাদ
    391
    103 টি পোস্টের জন্য 589 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন

    ক্রুড ওয়েল এর দাম কমছে

    বিশ্ব বাজারে জ্বালানী তেলের দাম ধীরে ধীরে আবার কমতে শুরু করেছে। গেল দুই সপ্তাহের পতনে দর নেমে এসেছে প্রায় ৭৭ ডলারে। ট্রেড ওয়ারের কারনে চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আলোচনা বাতিল হয়ে যাওয়াই এর বড় কারণ বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও এই দর কমার পেছনে অতিরিক্ত সরবরাহও অবদান রাখছে...

  2. #2 সঙ্কুচিত পোস্ট
    প্রবীণ সদস্য SUROZ Islam's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Jan 2018
    মন্তব্য
    319
    অর্জিত পেমেন্টস
    438.74 USD
    ধন্যবাদ
    306
    97 টি পোস্টের জন্য 444 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    নতুন বছরের শুরু থেকেই জ্বালানী তেলের উৎপাদন কমিয়ে আনতে চায় তেল রপ্তানিকারক দেশগুলোর সংগঠন ওপেক। কিন্তু ওপেকের নেতৃত্বে থাকা সৌদি আরব বলছে, প্রতিদিন সর্বোচ্চ ১০ থেকে ১৩ লাখ ব্যারেল উৎপাদন কমানো হতে পারে। যদিও এ বিষয়ে একমত হতে পারেনি সদস্য দেশগুলো। আর বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, এটি পড়তি জ্বালানি তেলের বাজারে বড় কোনো প্রভাব ফেলতে পারবে না।

  3. #3 সঙ্কুচিত পোস্ট
    প্রবীণ সদস্য SaifulRahman's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Nov 2017
    মন্তব্য
    339
    অর্জিত পেমেন্টস
    43.72 USD
    ধন্যবাদ
    372
    104 টি পোস্টের জন্য 433 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    Click image for larger version

Name:	images.jpg
Views:	12
Size:	7.2 কিলোবাইট
ID:	10520
    বিশ্বজুড়ে নভেল করোনাভাইরাস মহামারির প্রভাবে ব্যাপক চাহিদা কমেছে জ্বালানি তেলের। দেশে দেশে বন্ধ হয়েছে বিমান চলাচল। লকডাউনের কারণে ঘর থেকে বের হতে পারছে না মানুষ। সব মিলিয়ে কমেছে চাহিদা। ফলে দামের ওপর মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব পড়তে শুরু করে। গত সোমবার তেলের দাম কমে ১৮ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে নেমে আসে। কিন্তু গত বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আশা করছেন, তেলের দাম নিয়ে চলা ‘মূল্যযুদ্ধের’ ইতি টানতে খুব শিগগির চুক্তিতে যাবে সৌদি আরব ও রাশিয়া। মার্কিন প্রেসিডেন্টের এমন আশাবাদের পর আজ বৃহস্পতিবার বিশ্ববাজারে বেড়েছে জ্বালানি তেলের দাম। এশিয়ার বাজারে আজ অপরিশোধিত তেলের দাম ৬ শতাংশ বেড়েছে। ব্যারেল প্রতি ২৬ ডলার হয়েছে।

  4. #4 সঙ্কুচিত পোস্ট
    প্রবীণ সদস্য SaifulRahman's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Nov 2017
    মন্তব্য
    339
    অর্জিত পেমেন্টস
    43.72 USD
    ধন্যবাদ
    372
    104 টি পোস্টের জন্য 433 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    Click image for larger version

Name:	News.jpg
Views:	10
Size:	71.9 কিলোবাইট
ID:	10547
    বিশ্ববাজারে আবারও কমেছে জ্বালানি তেলের দাম। গত সপ্তাহে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানান, উৎপাদন কমাতে রাশিয়া ও সৌদি আরবের মধ্যে একটি চুক্তি হবে। এরপর বিশ্ববাজারে কিছুটা বাড়ে তেলের দাম। তবে সেই চুক্তির বিষয়টি স্থগিত হয়ে যাওয়ায় আজ সোমবার আবার কমেছে দাম।বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।আজ অপরিশোধিত তেলের দাম কমেছে ১২ শতাংশ। যুক্তরাষ্ট্রভিত্ িক তেলের দাম কমেছে ১০ শতাংশ।গত এক মাস ধরেই তেলের দাম নিয়ে `মূল্যযুদ্ধ' চালিয়ে যাচ্ছে সৌদি আরব ও রাশিয়া। করোনাভাইরাসের কারনে বিশ্বের একটা বড় অংশ লকডাউনে রয়েছে। বেশির ভাগ দেশই উড়োজাহাজ চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। এ অবস্থায় অপরিশোধিত তেলের জোগান চাহিদার তুলনায় অনেক বেশি বেড়ে গেছে। ফলে তেলের দাম হু হু করে কমেছে বিশ্ববাজারে। সম্প্রতি প্রতি ব্যারেল তেলের দাম দাঁড়ায় ২২ দশমিক ৫৮ ডলার। যা ছিল ১৮ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন দাম। তবে উৎপাদন কমাতে একটা চুক্তিতে যাচ্ছে সৌদি আরব ও রাশিয়া এমন খবরে গত বৃহস্পতিবার বিশ্ববাজারে ২০ শতাংশ পর্যন্ত তেলের দাম বাড়ে। প্রতি ব্যারেল ২৬ ডলার হয়। ওই চুক্তি স্থগিত হয়ে যাওয়ার খবরে আজ আবার কমেছে দাম।

  5. #5 সঙ্কুচিত পোস্ট
    প্রবীণ সদস্য Montu Zaman's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Feb 2018
    মন্তব্য
    649
    অর্জিত পেমেন্টস
    1,026.62 USD
    ধন্যবাদ
    393
    195 টি পোস্টের জন্য 575 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন

    গত ১ মে থেকে ওপেক-নন ওপেক দেশগুলোর আওতায় অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের বৈশ্বিক উত্তোলন হ্রাসের চুক্তি কার্যকর হয়েছে। এর আগ পর্যন্ত জ্বালানি পণ্যটির উত্তোলন বাড়িয়েছে চুক্তির অন্যতম প্রভাবশালী সদস্য দেশ রাশিয়া। রাশিয়ার জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদনে দেয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, গত এপ্রিলে দেশটির কূপগুলো থেকে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দৈনিক গড় উত্তোলন আগের মাসের তুলনায় ৬০ হাজার ব্যারেল বাড়ানো হয়েছে। এমনকি বছরের প্রথম চার মাসে (জানুয়ারি-এপ্রিল) দেশটি থেকে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল রফতানি বেড়েছে ২ শতাংশের বেশি। রুশ উত্তোলন ও রফতানি খাতের এ চাঙ্গা ভাব আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি পণ্যটির সাম্প্রতিক রেকর্ড দরপতনের বড় একটি কারণ বলে মনে করছেন খাতসংশ্লিষ্টরা।

  6. আপনার ধন্যবাদ সরিয়ে ফেলুন

    নিম্নলিখিত 2 সদস্য দরকারী পোস্টের জন্য Montu Zaman কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন:

    Unregistered (2 )

  7. #6 সঙ্কুচিত পোস্ট
    প্রবীণ সদস্য Mas26's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Jan 2020
    মন্তব্য
    1,346
    অর্জিত পেমেন্টস
    1,531.62 USD
    ধন্যবাদ
    221
    415 টি পোস্টের জন্য 684 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    বিশ্ব বাজারে জ্বালানী তেলের দাম ধীরে ধীরে আবার কমতে শুরু করেছে। গেল দুই সপ্তাহের পতনে দর নেমে এসেছে প্রায় ৭৭ ডলারে। ট্রেড ওয়ারের কারনে চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আলোচনা বাতিল হয়ে যাওয়াই এর বড় কারণ বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও এই দর কমার পেছনে অতিরিক্ত সরবরাহও অবদান রাখছে

  8. #7 সঙ্কুচিত পোস্ট
    প্রবীণ সদস্য Montu Zaman's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Feb 2018
    মন্তব্য
    649
    অর্জিত পেমেন্টস
    1,026.62 USD
    ধন্যবাদ
    393
    195 টি পোস্টের জন্য 575 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    করোনার থাবায় কিছুদিন আগেও মার্কেটে তেলের মুল্য ব্যারেল প্রতি ১ ডলারেরও কম ছিল, আর ফরেক্স মার্কেটে পিপ্স ভ্যালু হিসেবে প্রাইস ১১ এর কাছাকাছি ছিল। কিন্তু পরিস্থিতি এখন অনেকটাই টাল্টে গেছে, বিশ্বব্যাপী লকডাউন তোলার কারনে তেলের দাম উর্দ্ধ মুখি এবং ফরেক্স মার্কেটে তেলের পিপ্স ভ্যালু ৪০ এ এসে ঠেকেছে। এমন সুযোগ থেকে প্রফিট নিয়েছেন কে কে?

  9. আপনার ধন্যবাদ সরিয়ে ফেলুন

    নিম্নলিখিত 2 সদস্য দরকারী পোস্টের জন্য Montu Zaman কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন:

    Unregistered (2 )

  10. #8 সঙ্কুচিত পোস্ট
    প্রবীণ সদস্য FXBD's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Oct 2017
    মন্তব্য
    236
    অর্জিত পেমেন্টস
    26.44 USD
    ধন্যবাদ
    433
    79 টি পোস্টের জন্য 266 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের বৈশ্বিক চাহিদায় শিগগিরই চাঙ্গা ভাব ফেরার সম্ভাবনা নেই। ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সি (আইইএ) সম্প্রতি এ কথা জানিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি বলেছে, নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের আগে বিশ্বজুড়ে জ্বালানি তেলের যে চাহিদা ছিল, ২০২২ সালের আগে তা পুনরুদ্ধারের সম্ভাবনা ক্ষীণ। আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের উদ্বৃত্ত সরবরাহ প্রত্যাশার তুলনায় দ্রুতগতিতে কমছে। নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বছরের শুরুর দিকে পণ্যটির বৈশ্বিক ব্যবহার ব্যাপকহারে কমে গিয়েছিল। তবে অর্গানাইজেশন অব পেট্রোলিয়াম এক্সপোর্টিং কান্ট্রিজ ও মিত্র দেশগুলোর (ওপেক প্লাস) রেকর্ড উত্তোলন হ্রাস ও সাম্প্রতিক সময়ে কয়েকটি দেশে চাহিদা ফের বাড়ায় বাজারে পণ্যটির চাহিদা ও সরবরাহে ভারসাম্য ফিরতে শুরু করেছে। সম্প্রতি দৈনিক গড়ে ৯৭ লাখ ব্যারেল জ্বালানি তেল উত্তোলন হ্রাস চুক্তির মেয়াদ আরো এক মাস বাড়াতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে ওপেক ও নন-ওপেকের দেশগুলো। এর জের ধরে চলতি বছরের মে মাসে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের সরবরাহ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় দৈনিক গড়ে ১ কোটি ২০ লাখ ব্যারেল কমেছে।
    এদিকে নভেল করোনাভাইরাসের পরিস্থিতি অনেকটা সামলে উঠেছে চীন। ফলে মহামারীর মধ্যে দেশটির স্থবির হয়ে যাওয়া অর্থনৈতিক কার্যক্রমে গতি ফিরছে। এতে দেশটিতে জ্বালানি তেলের চাহিদা ঊর্ধ্বমুখী হতে শুরু করেছে। গত এপ্রিলে চীনে পণ্যটির চাহিদা বেড়ে স্বাভাবিক স্তরে ফিরেছে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। গত মাসে ইতিহাসের সর্বোচ্চ জ্বালানি তেল আমদানি করেছে দেশটি। চীনের মতো এশিয়া ও ইউরোপের আরো কয়েকটা দেশ লকডাউন থেকে সরে এসেছে। এতে জ্বালানি তেলের বৈশ্বিক চাহিদা দ্রুত চাঙ্গা হয়ে ওঠার সম্ভাবনা জোরালো হচ্ছে। তবে এতে বাদ সাধতে পারে নভেল করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় পর্যায়ের প্রাদুর্ভাব। সম্প্রতি চীন ঘোষণা দিয়েছে, মহামারীর নতুন সম্ভাব্য আঘাতের কারণে শিগগিরই রাজধানী বেইজিংয়ের স্কুলগুলো বন্ধ হয়ে যেতে পারে। দেশটির অর্থনীতি এতে নতুন করে সংকটে পড়তে পারে। বিশ্বের শীর্ষ জ্বালানি তেল ভোক্তা দেশ হওয়ায় পণ্যটি বাজার নির্ধারণে বড় ভূমিকা রাখতে পারে। এছাড়া অন্যান্য দেশেও ভাইরাসটির দ্বিতীয় দফার সংক্রমণের ঝুঁকি রয়েছে।
    চলতি বছর বিশ্বজুড়ে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের উত্তোলন দৈনিক গড়ে ৭২ লাখ ব্যারেল কমে যেতে পারে। তবে পরের বছর এর তুলনায় পণ্যটির উত্তোলন দৈনিক গড়ে ১৮ লাখ ব্যারেল বাড়তে পারে। এতে জ্বালানিটির দাম মোটামুটি ব্যারেলপ্রতি ৪০ ডলারে স্থির হতে পারে, যা পণ্যটির বাজার পুনরুদ্ধারের জন্য যথেষ্ট নয়

  11. #9 সঙ্কুচিত পোস্ট
    প্রবীণ সদস্য DhakaFX's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Oct 2017
    মন্তব্য
    379
    অর্জিত পেমেন্টস
    63.97 USD
    ধন্যবাদ
    451
    98 টি পোস্টের জন্য 326 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    করোনাভাইরাস সারা দুনিয়ার রাজনীতি, অর্থনীতিসহ বহু কিছু পাল্টে দিয়েছে। করোনাভাইরাসের কারণে দুনিয়া থমকে গেছে। এতে সারা দুনিয়ার কলকারখানা, যানবাহন, বিমান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তেলের ব্যবহার বিপুলভাবে কমে গেছে। গত বছর প্রতি ব্যারেল অপরিশোধিত তেলের দাম গড়ে ৬৪ ডলার ছিল। আর চলতি এপ্রিলে তা ফ্রি-তে পরিণত হয়েছে। অবশ্য দাম সেখান থেকে বেড়েছে। দুনিয়ায় এই প্রথম তেলের দাম শূন্যের নিচে চলে যাওয়ার ঘটনা ঘটে। তবে এর পরপরই তেলের বাজার কিছুটা ঘুরে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু বছরজুড়ে তেলের বাজার ব্যারেলপ্রতি ৩০ ডলারে ঘোরাফেরা করবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তেলের দাম বাড়ানোর নানা চেষ্টা বিশ্বব্যাপী করা হচ্ছে। এর মধ্যে ওপেকভুক্ত দেশগুলো সম্মিলিতভাবে দৈনিক ১০ কোটি ব্যারেল (১০০ মিলিয়ন ব্যারেল) তেল উত্তোলন বন্ধ করেছে। যুক্তরাষ্ট্র নিজের তেল উত্তোলন কমানোর ঘোষণা দিয়েছে। তারপরও তেলের দরপতন ঠেকানো যাচ্ছে না। পৃথিবীতে প্রতিদিন প্রায় ২ কোটি ব্যারেল তেল উদ্বৃত্ত থেকে যাচ্ছে, যে তেলের ব্যবহার নেই, বাজারও নেই। যদি তেলের ব্যারেল ২০ ডলার থাকে তাহলে অন্তত ৮০ শতাংশ তেল কোম্পানি দেউলিয়া হয়ে যাবে। আড়াই লাখ লোক চাকরি হারাবেন। আর যদি ৩০ ডলারে থাকে, তাহলে অনেক কোম্পানি সংকটে পড়বে ঠিকই কিন্তু এ খাতটি বেঁচে যাবে।

  12. আপনার ধন্যবাদ সরিয়ে ফেলুন

    নিম্নলিখিত 2 সদস্য দরকারী পোস্টের জন্য DhakaFX কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন:

    Unregistered (2 )

+ প্রসঙ্গে প্রত্যুত্তর

মন্তব্য নিয়মাবলি

  • আপনি হয়ত নতুন পোস্ট করতে পারবেন না
  • আপনি হয়ত মন্তব্য লিখতে পারবেন না
  • আপনি হয়ত সংযুক্তি সংযুক্ত করতে পারবেন না
  • আপনি হয়ত আপনার মন্তব্য পরিবর্তনপারবেন না
  • BB কোড হলো উপর
  • Smilies are উপর
  • [IMG] কোড হয় উপর
  • এইচটিএমএল কোড হল বন্ধ
বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম � উপস্থাপন
ফোরাম সেবায় আপনাকে স্বাগতম যেটি ভার্চুয়াল স্যালুন হিসেবে সকল স্তরের ট্রেডারদের সাথে যোগাযোগ করার সুযোগ প্রদান করছে। ফরেক্স হলো একটি গতিশীল আর্থিক বাজার যেটি দিনে ২৪ঘন্টা খোলা থাকে। যে কেউ ব্রোকারেজ কোম্পানির মাধ্যমে এখানে কার্যক্রম সম্পাদন করতে পারে। এই ফোরামে আপনি কারেন্সি মার্কেটে ট্রেডিং এবং মেটাট্রেডার ফোর ও মেটাট্রেডার ফাইভের মাধ্যমে অনলাইন ট্রেডিং সম্পর্কিত বিস্তারিত বিবরণ পাবেন।

বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম � ট্রেডিং আলোচনা
ফোরামের প্রত্যেক সদস্য বিভিন্ন আলোচনায় অংশগ্রহণ করতে পারেন, যার মধ্যে ফরেক্স সম্পর্কিত ও ফরেক্সের বাইরের বিভিন্ন বিষয়ও রয়েছে। ফোরাম বিভিন্ন মতামত এবং প্রয়োজনীয় তথ্য শেয়ারের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে এবং এটি অভিজ্ঞ ও নতুন উভয় ধরণের ট্রেডারদের জন্য উন্মুক্ত। পারস্পরিক সহায়তা এবং সহনশীলতা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। আপনি যদি অন্যদের সাথে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে চান অথবা ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার জ্ঞান বৃদ্ধি করতে চান, তাহলে ট্রেডিং সম্পর্কিত আলোচনা "ফোরাম থ্রেড" এ আপনাকে স্বাগত।

বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম � ব্রোকার এবং ট্রেডারদের মধ্যে আলোচনা (ব্রোকার সম্পর্কে)
ফরেক্সে সফল হতে চাইলে, যথেষ্ট কৌশলের সাথে একটি ব্রোকারেজ কোম্পানি বাছাই করতে হবে। আপনার ব্রোকার সত্যিই নির্ভরযোগ্য সেটি নির্ধারণ করুন! এভাবে আপনি অনেক ঝুঁকির সম্মুখীন হবেন এবং ফরেক্সে লাভজনক ট্রেড করতে পারবেন। ফোরামে একজন ব্রোকারের রেটিং উপস্থাপন করা হয়; এটি তাদের গ্রাহকদের রেখে যাওয়া মন্তব্য নিয়ে তৈরি করা হয়। আপনি যে ব্রোকার কোম্পানির সাথে কাজ করছেন সে কোম্পানি সম্পর্কে আপনার মতামত দিন, এটি অন্যান্য ট্রেডারদের ভুল সংশোধন করতে সাহায্য করবে এবং একজন ভালো ব্রোকার বাছাই করতে সাহায্য করবে।

অবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম
এই ফোরামে আপনি শুধু ট্রেডিং এর বিষয় সম্পর্কেই কথা বলবেন না, সেইসাথে আপনার পছন্দের যে কোন বিষয় সম্পর্কে কথা বলতে পারবেন। বিশেষ থ্রেডে অফটপিং ও করা যায়! আপনার পছন্দের যে কোন হাস্যরস, দর্শন, সামাজিক সমস্যা বা বাস্তব জ্ঞান সম্পর্কিত কথাবার্তা এখানে উল্লেখ করতে পারবেন, এমনকি আপনি যদি পছন্দ করেন তাহলে ফরেক্স ট্রেডিং সম্পর্কেও লিখতে পারবেন!

যোগদান করার জন্য বোনাস বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরামে
যারা ফোরামে লেখা পোষ্ট করবে তারা বোনাস হিসেবে অর্থ পাবে এবং সেই বোনাস একটি অ্যাকাউন্টে ট্রেডিং এর সময় ব্যবহার করতে পারবে. ফোরাম অর্থ মুনাফা লাভ করা নয়, অধিকন্তু, ফোরামে সময় ব্যয় করার জন্য এবং কারেন্সি মার্কেট ও ট্রেডিং সম্পর্কে মতামত শেয়ারের জন্য পুরষ্কার হিসেবে ফোরামিটিস অল্প কিছু বোনাস পায়।