আয় করুন
$50000
বন্ধুদের আমন্ত্রণ করার জন্য
ইন্সটাফরেক্স থেকে স্টার্টআপ
বোনাস নিন
কোন বিনিয়োগের প্রয়োজন নেই!
কোনো বিনিয়োগ এবং ঝুঁকি
ছাড়াই ট্রেডিং শুরু করতে
গ্রহণ করুন নতুন স্টার্টআপ
বোনাস $1000
বোনাস নিন
৫৫%
ইন্সটাফরেক্স থেকে
প্রতিবার অর্থ জমাদানে
+ প্রসঙ্গে প্রত্যুত্তর
পৃষ্ঠা 5 of 5 প্রথমপ্রথম ... 345
ফলাফল দেখাচ্ছে 41 হইতে 45 সর্বমোট 45

প্রসংগ: ঢাকা শেয়ার মার্কেটের যত নিউজ!

  1. #41
    প্রবীণ সদস্য ARD's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Oct 2019
    অবস্থান
    Tungi
    মন্তব্য
    460
    সঞ্চিত বোনাস
    47.80 USD
    ধন্যবাদ
    1
    100 টি পোস্টের জন্য 153 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    প্রিয় আমরা ইউ কে স্টক এ কাজ করছি এবং আমাদের haাকা সম্পর্কে কাজ করতে চাইলে ফরেক্স সম্পর্কে সমস্ত তথ্য আমাদের দরকার

  2. #42
    প্রবীণ সদস্য FXBD's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Oct 2017
    মন্তব্য
    176
    সঞ্চিত বোনাস
    20.52 USD
    ধন্যবাদ
    25
    36 টি পোস্টের জন্য 60 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    এ বছরই শেয়ারবাজার থেকে প্রায় ৭০ হাজার কোটি টাকা লোপাট হয়েছে,*সবাই শুধু ipo বিরুদ্ধে কথা বলে ! মার্কেটে অনেক মাস হলো নতুন ipo নাই কিন্তু মার্কেট কি ভালো হইছে না আরো খারাপ হয়েছে ? দয়াকরে সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কে বলবো ipo বিরুদ্ধে খারাপ চিন্তা না করে মার্কেট কে ভালো করেন এবং ভালো ভালো কোম্পানিগুলো মার্কেটে নিয়ে আসেন তাহলে মার্কেট আরো ভালো হবে ,যেমন: গ্রামীণফোন যখন মার্কেটে আসে তখন মার্কেট আরো ভালো হয়েছে।*

  3. #43
    প্রবীণ সদস্য Tofazzal Mia's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Feb 2018
    মন্তব্য
    259
    সঞ্চিত বোনাস
    370.67 USD
    ধন্যবাদ
    37
    38 টি পোস্টের জন্য 55 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    news_209661_2.jpg
    দেশের পুঁজিবাজারে বিদেশী বিনিয়োগকারীরা সাধারণত ডলারে বিনিয়োগ করে থাকেন। তাদের বিনিয়োগের বিপরীতে যে মূলধনি মুনাফা আসে, সেটিও তারা ডলারে রূপান্তর করেই বিদেশে নিয়ে যান। ফলে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের ক্ষেত্রে ডলারের বিপরীতে টাকার অবমূল্যায়ন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি নির্দেশক হিসেবে কাজ করে। টাকার অবমূল্যায়নের সঙ্গে দেশের পুঁজিবাজারে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের লেনদেনের তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, ডলারের বিপরীতে টাকা যত দুর্বল হয়েছে, বিদেশীদের মধ্যে শেয়ার বিক্রির প্রবণতাও তত বেড়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বিদেশী বিনিয়োগকারীদের লেনদেন পর্যালোচনায় দেখা যায়, ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে চলতি বছরের অক্টোবর পর্যন্ত ২২ মাসের মধ্যে মাত্র পাঁচ মাস বিদেশীরা শেয়ার বিক্রির চেয়ে বেশি কিনেছেন। আর বাকি ১৭ মাসই তারা কেনার চেয়ে বেশি শেয়ার বিক্রি করেছেন। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে পুঁজিবাজারে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের নিট লেনদেন ছিল ১৮৭ কোটি টাকা। এর পরের মাস ফেব্রুয়ারিতে এসে এটি ঋণাত্মক ৯৪ কোটি টাকায় দাঁড়ায়। মার্চে আবার বিদেশী বিনিয়োগকারীদের নিট লেনদেন দাঁড়ায় ১৫৬ কোটি টাকায়। এর পরের পাঁচ মাস ডিএসইতে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের নিট লেনদেন ছিল ঋণাত্মক। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে বিক্রির চেয়ে কেনার পরিমাণ বেশি হওয়ায় বিদেশী বিনিয়োগকারীদের নিট লেনদেন হয় ৩৫ কোটি টাকা। এর পরের তিন মাস অর্থাত্ ডিসেম্বর পর্যন্ত ডিএসইতে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের নিট লেনদেন ছিল ঋণাত্মক। এ বছরের প্রথম দুই মাস পুঁজিবাজারে বিদেশী বিনিয়োগকারীরা শেয়ার বিক্রির চেয়ে কিনেছেন বেশি। এর মধ্যে জানুয়ারিতে নিট বৈদেশিক লেনদেন ছিল ১৭৫ কোটি টাকা; ফেব্রুয়ারিতে ছিল ৩২৩ কোটি টাকা। অবশ্য এর পর থেকেই টানা আট মাস দেশের পুঁজিবাজারে বিদেশী বিনিয়োগকারীরা কেনার চেয়ে শেয়ার বিক্রি করেছেন বেশি।

  4. #44
    প্রবীণ সদস্য SUROZ Islam's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Jan 2018
    মন্তব্য
    241
    সঞ্চিত বোনাস
    377.70 USD
    ধন্যবাদ
    60
    44 টি পোস্টের জন্য 74 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    বাজারের পেনিক যতভাবেই করুক না কেন বাজার এখান থেকেই বাড়তে হবে। এখন জুন ক্লোজিং এর ঈদ চলছে!! যেইভাবে কোম্পানির দর হারিয়েছে এবং প্রহসন মূলক ডিভিডেন্ড দিয়েছে সবই অর্থমন্ত্রীর ইচ্ছায় হয়েছে!!! কারন তিনি একজন নষ্ট গেইমলার!! জুন ক্লোজিং হোল্ডাররা তাদের হোল্ডিং নিয়ে অনেক লসে আছেন । ভাইয়ের যদি আপনার শেয়ার ডিভিডেন্ড দিয়ে থাকে যাই দেক না কেন ডিভিডেন্ড এনজয় করুন। আপাতত একবছর মানে আগামি বছর ডিভিডেন্ড পর্যন্ত আপনি সময় পাবেন বের হওয়ার জন্য। পারলে বাই সেল করে ক্রয়মুল্য কমাতে পারেন।
    টেক্সটাইল সেক্টরের হোল্ডারদের ত আরো করুন অবস্থা!! এখন পেনিকের সময় নয়। পারলে চেষ্টা করুন বাই সেল করে কস্টিং কমাতে। টেক্সটাইল সেক্টর নিয়ে অনেকেই অনেক ধরনের পেনিক দিচ্ছেন। কারন এত কম দামে টেক্সটাইল ওদের কাচে নাই। আপনাকে ধোকা দিয়ে আপনার হাতের শেয়ার নেওয়ার কৌশল করছে। ইন্সুরেন্স হোল্ডাররা আসোলেই আতংকের মধ্যেই আছে। সাজেশন হলো যদি লাভ করে থাকেন আর যদি সংশয় থাকে তাহলে সেল করে টাকা ফ্রি করে রাখেন। কারন ইন্সুরেন্স এখন ফিডিং জোনে আছে। ইন্সুরেন্স নিয়ে এখন যারা বেশি বেশি আশাবাদি হয়ে হাতের কম দামের শেয়ার ছেড়ে দিয়ে নতুন করে ইন্সুরেন্স নিবে এদের কপালে দুখ আছে!! তবে কিছু কিছু হয়ত ব্যাতিক্রম হতে পারে। তাই বলে এই সেক্টর একেবারেই নিরাপদ বলে রাজিব নোহালের মত ইয়াবা খোরেরা যখন এ্যাড দিবে তখন বুজে নিবেন এরাই দালাল। এরা টাকার বিনিময়ে দালালি করছে। সবাই এইসব দালালদের কাছ থেকে দূরে থাকুন। নভেম্বর ২০ তারিখ পযন্ত বাজারে ব্যাপক ব্যবসা দিবে যদি ধরতে পারেন অনেক অনেক ভালো করতে পারবেন।
    এই বাজারে নতুন করে কোনো আইটেম নেই। আপনার হাতের লসের আইটেমটিই শেয়ারই বাজারের আইটেম। আপনার আইটেম কে সঠিকভাবে পরিচর্যা করুন।

  5. PAMM
  6. #45
    প্রবীণ সদস্য BDFOREX TRADER's Avatar
    নিবন্ধনের তারিখ
    Aug 2014
    মন্তব্য
    137
    সঞ্চিত বোনাস
    198.47 USD
    ধন্যবাদ
    14
    33 টি পোস্টের জন্য 50 বার ধন্যবাদ পেয়েছেন
    পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৩২ কোম্পানি রেকর্ড ও স্পট মার্কেটে লেনদেনের তারিখ পরিবর্তন করেছে। বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৭ ও ১১ নভেম্বর এই দুই দিন স্পট মার্কেটে কোন লেনদেন হবে না। তাই কোম্পানিগুলোর রেকর্ড তারিখ পরিবর্তন করা হয়েছে। কোম্পানিগুলো হচ্ছে- সোনারগাঁ টেক্সটাইল, উসমানিয়া গ্লাস শিট ফ্যাক্টরি, আরামিট সিমেন্ট, গোল্ডেন সন, বিডি থাই অ্যালুমিনিয়াম, আইটিসি, এমজেএলবিডি, ম্যারিকো বাংলাদেশ, মালেক স্পিনিং মিলস লিমিটেড, অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ, অ্যাপেক্স ফুডস, অ্যাপেক্স পিস্পনিং, বিডি অটোকার্স, দুলামিয়া কটন, জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশন, ইনটেক লিমিটেড, ইনফরমেশন সার্ভিসেস নেটওয়ার্কস, জুট স্পিনার্স, খান ব্রাদার্স, মেঘনা কনডেন্স মিল্ক, মেঘনা পেট, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স, রেনউইক যজ্ঞেশ্বর, আর.এন স্পিনিং, স্যালভো কেমিক্যাল, শ্যামপুর সুগার, জাহিন টেক্সটাইল, জিলবাংলা সুগার মিলস, আল-হাজ্ব টেক্সটাইল, আজিজ পাইপস, কে অ্যান্ড কিউ এবং মুন্নু সিরামি লিমিটেড। জানা গেছে, আগামী ১১ নভেম্বর সোমবার স্টক এক্সচেঞ্জে ক্লিয়ারিং এবং সেটেলমেন্ট কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। এছাড়া আগামী ৭ ও ১১ নভেম্বর এই দুই দিন স্পট মার্কেটে কোন লেনদেন হবে না। গতকাল ৬ নভেম্বর বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো: সাইফুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

+ প্রসঙ্গে প্রত্যুত্তর
পৃষ্ঠা 5 of 5 প্রথমপ্রথম ... 345

মন্তব্য নিয়মাবলি

  • আপনি হয়ত নতুন পোস্ট করতে পারবেন না
  • আপনি হয়ত মন্তব্য লিখতে পারবেন না
  • আপনি হয়ত সংযুক্তি সংযুক্ত করতে পারবেন না
  • আপনি হয়ত আপনার মন্তব্য পরিবর্তনপারবেন না
  • BB কোড হলো উপর
  • Smilies are উপর
  • [IMG] কোড হয় উপর
  • এইচটিএমএল কোড হল বন্ধ
বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম � উপস্থাপন
ফোরাম সেবায় আপনাকে স্বাগতম যেটি ভার্চুয়াল স্যালুন হিসেবে সকল স্তরের ট্রেডারদের সাথে যোগাযোগ করার সুযোগ প্রদান করছে। ফরেক্স হলো একটি গতিশীল আর্থিক বাজার যেটি দিনে ২৪ঘন্টা খোলা থাকে। যে কেউ ব্রোকারেজ কোম্পানির মাধ্যমে এখানে কার্যক্রম সম্পাদন করতে পারে। এই ফোরামে আপনি কারেন্সি মার্কেটে ট্রেডিং এবং মেটাট্রেডার ফোর ও মেটাট্রেডার ফাইভের মাধ্যমে অনলাইন ট্রেডিং সম্পর্কিত বিস্তারিত বিবরণ পাবেন।

বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম � ট্রেডিং আলোচনা
ফোরামের প্রত্যেক সদস্য বিভিন্ন আলোচনায় অংশগ্রহণ করতে পারেন, যার মধ্যে ফরেক্স সম্পর্কিত ও ফরেক্সের বাইরের বিভিন্ন বিষয়ও রয়েছে। ফোরাম বিভিন্ন মতামত এবং প্রয়োজনীয় তথ্য শেয়ারের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে এবং এটি অভিজ্ঞ ও নতুন উভয় ধরণের ট্রেডারদের জন্য উন্মুক্ত। পারস্পরিক সহায়তা এবং সহনশীলতা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। আপনি যদি অন্যদের সাথে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে চান অথবা ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার জ্ঞান বৃদ্ধি করতে চান, তাহলে ট্রেডিং সম্পর্কিত আলোচনা "ফোরাম থ্রেড" এ আপনাকে স্বাগত।

বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম � ব্রোকার এবং ট্রেডারদের মধ্যে আলোচনা (ব্রোকার সম্পর্কে)
ফরেক্সে সফল হতে চাইলে, যথেষ্ট কৌশলের সাথে একটি ব্রোকারেজ কোম্পানি বাছাই করতে হবে। আপনার ব্রোকার সত্যিই নির্ভরযোগ্য সেটি নির্ধারণ করুন! এভাবে আপনি অনেক ঝুঁকির সম্মুখীন হবেন এবং ফরেক্সে লাভজনক ট্রেড করতে পারবেন। ফোরামে একজন ব্রোকারের রেটিং উপস্থাপন করা হয়; এটি তাদের গ্রাহকদের রেখে যাওয়া মন্তব্য নিয়ে তৈরি করা হয়। আপনি যে ব্রোকার কোম্পানির সাথে কাজ করছেন সে কোম্পানি সম্পর্কে আপনার মতামত দিন, এটি অন্যান্য ট্রেডারদের ভুল সংশোধন করতে সাহায্য করবে এবং একজন ভালো ব্রোকার বাছাই করতে সাহায্য করবে।

অবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরাম
এই ফোরামে আপনি শুধু ট্রেডিং এর বিষয় সম্পর্কেই কথা বলবেন না, সেইসাথে আপনার পছন্দের যে কোন বিষয় সম্পর্কে কথা বলতে পারবেন। বিশেষ থ্রেডে অফটপিং ও করা যায়! আপনার পছন্দের যে কোন হাস্যরস, দর্শন, সামাজিক সমস্যা বা বাস্তব জ্ঞান সম্পর্কিত কথাবার্তা এখানে উল্লেখ করতে পারবেন, এমনকি আপনি যদি পছন্দ করেন তাহলে ফরেক্স ট্রেডিং সম্পর্কেও লিখতে পারবেন!

যোগদান করার জন্য বোনাস বাংলাদেশ ফরেক্স ফোরামে
যারা ফোরামে লেখা পোষ্ট করবে তারা বোনাস হিসেবে অর্থ পাবে এবং সেই বোনাস একটি অ্যাকাউন্টে ট্রেডিং এর সময় ব্যবহার করতে পারবে. ফোরাম অর্থ মুনাফা লাভ করা নয়, অধিকন্তু, ফোরামে সময় ব্যয় করার জন্য এবং কারেন্সি মার্কেট ও ট্রেডিং সম্পর্কে মতামত শেয়ারের জন্য পুরষ্কার হিসেবে ফোরামিটিস অল্প কিছু বোনাস পায়।