Name: 244652369_1851069161731723_7857947201516466090_n.jpg Views: 23 Size: 48.1 KB
করোনাভাইরাস মহামারির প্রথম ধাক্কায় ক্ষতিগ্রস্ত হলেও দ্বিতীয় ধাক্কা থেকেই মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে দেশের জাহাজভাঙা শিল্প। এ বছর জানুয়ারি-মার্চ ও এপ্রিল-জুন জরিপের মতো জুলাই-সেপ্টেম্বর মাসের জরিপেও প্রথমস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। বেলজিয়ামভিত্তিক গবেষণা সংস্থা “শিপ ব্রেকিং প্ল্যাটফর্ম”-এর সর্বশেষ প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে আসে। এই বছরের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর মাসে বিশ্বব্যাপী সর্বমোট ১২০টি জাহাজ ভাঙা হয়েছে। এর মধ্যে শুধুমাত্র বাংলাদেশেই ভাঙা হয়ে ৪১টি জাহাজ। অর্থাৎ যা মোট জাহাজ ভাঙার প্রায় ৩৪%। একইভাবে এ বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী ৫৮২টি জাহাজ ভাঙা হয়েছে। যার মধ্যে বাংলাদেশেই ১৯৭টি অর্থাৎ এখানেও প্রায় ৩৪% জাহাজ ভাঙা হয়েছে।মূলত অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য বিগত বছরগুলোতে রডের চাহিদা বেড়েছে। মেট্রোরেল, পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, পদ্মা সেতু, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, মাতারবাড়ি সহ বিভিন্ন বিভিন্ন প্রকল্পের জন্য প্রচোর কাচামালের যোগান প্রয়োজন। এই চাহিদা পূরণের জন্য রড তৈরির বাড়তি কাঁচামাল প্রয়োজন। আর এ জন্যই বেড়েছে জাহাজ ভাঙার পরিমাণ। মহামারি রোধে জারি করা লকডাউনেও অব্যাহত ছিল এই শিল্প খাতটি। তাই গত ৯ মাস ধরে ভারতকে পেছনে ফেলে বাংলাদেশ জাহাজভাঙা শিল্পে শীর্ষস্থান বজায় রেখেছে। জাহাজ ভাঙার পরিমাণের দিক থেকেও ছয় বছর ধরে শীর্ষস্থান দখল করে রেখেছে বাংলাদেশ।