Name: Screenshot_20220408-190214.png Views: 1 Size: 401.0 KB ID: 17403
সৌদি আরবে গত ৪ বছরে তেলবহির্ভূত বেসরকারি খাতের প্রবৃদ্ধি দ্রুতগতিতে বেড়েছে। গত মাসেও এ খাতের বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠান আশাতীত ব্যবসা করেছে বলে এক প্রতিবেদনে জানায় এসঅ্যান্ডপি গ্লোবাল। আরব নিউজ। এসঅ্যান্ডপি গ্লোবালের পারচেজিং ম্যানেজারস সূচকে (পিএমআই) দেখা গেছে, ফেব্রুয়ারি তুলনায় মার্চে শূন্য দশমিক ৬ শতাংশ বেড়েছে বেসরকারি খাতের প্রবৃদ্ধি, ২০১৭ সালের পর যা সর্বোচ্চ। এ সময় বিভিন্ন সেবা ও ক্রয় খরচ কমেছে এবং নির্ধারিত সময়ে পণ্য সরবরাহব্যবস্থায় উন্নতি হয়েছে। এসঅ্যান্ডপি গ্লোবালের অর্থনীতিবিদ ডেভিড ওয়েন এক বিবৃতিতে বলেন, গত মাসে সৌদি আরবে পিএমআইয়ে তেলবহির্ভূত প্রতিষ্ঠানের আয়ে শক্তিশালী প্রবৃদ্ধি হয়েছে। নতুন ব্যবসা ও কর্মকাণ্ড বেড়ে যাওয়ায় পাশাপাশি ক্রেতাদের চাহিদা পূরণে সচেষ্ট ছিল এ ধরনের প্রতিষ্ঠানগুলো। সরবরাহব্যবস্থাও বেশ ভালো করেছে, গত ৩ বছর ধরে তারা এ অবস্থান ধরে রেখেছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর ক্রয়ক্ষমতা ২০১৭ সালের ডিসেম্বরের পর দ্রুতগতিতে বেড়েছে বলে জানান ওয়েন। প্রতিবেদনে বলা হয় কভিড-১৯ মহামারির কারণে স্থবির অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে আসতে তৎপর রয়েছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো। ফলে এ খাতটি প্রথমবারের মতো গত মাসে নতুন ক্রেতা ও রপ্তানির বিপুল ক্রয়াদেশ পেয়েছে দেশটি। যদিও প্রতিবেদনে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে বিশ্বে জ্বালানি তেল ও পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় সৌদি আরবের ব্যবসাবাণিজ্যে প্রভাব পড়ে বলে উল্লেখ করা হয়। মূল্যস্ফীতির কারণে সৌদি ব্যবসাবাণিজ্যে খরচ বেড়ে যায় বলে জানায় এসঅ্যান্ডপি। প্রতিষ্ঠানগুলোয় পেট্রোলের দামের পাশাপাশি কাঁচামালের দাম বেড়ে যাওয়ায় বিভিন্ন সেবা ও ক্রয় খরচ বাড়ে। কর্মীখরচও বাড়ে এ সময়। দীর্ঘদিন ধরে তেল-নির্ভর অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করছে সৌদি আরব। অর্থনীতি বহুমুখী করার জন্য স্বাস্থ্য, শিক্ষা অবকাঠামো, বিনোদন ও পর্যটনকে বেছে নিয়েছে দেশটি। এজন্য ভিশন ২০৩০ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।